বাংলাদেশ | সোমবার, জুলাই ১৬, ২০১৮ | ৩১ আষাঢ়,১৪২৫

জাতীয়

30-12-2017 09:53:47 AM

আগামীকাল যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী : যশোরবাসীর প্রত্যাশার পারদ তুঙ্গে

newsImg

আগামীকাল রোববার প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা যশোর আসছেন। অবিভক্ত বাংলার প্রথম জেলা, স্বাধীনতার প্রবেশদ্বার, দেশের প্রথম ডিজিটাল জেলা, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন ও কর্মবীর মুনসী মেহেরুল্লাহর স্মৃতি বিজড়িত তীর্থভুমি, শিক্ষা সংস্কৃতির ঐতিহ্যমন্ডিত, রাজনৈতিক আন্দোলন-সংগ্রামের পীঠস্থান, রকমারী সবজী, মাছের রেণু পোনা ও রজীনগন্ধা উৎপাদনে রেকর্ড সৃষ্টি এবং তাল তমাল খেজুর-বীথির যশোর প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সেজেছে নতুন সাজে। 
যশোরবাসীর প্রত্যাশার পারদ এখন তুঙ্গে। অধীর আগ্রহে যশোরবাসী অপেক্ষা করছেন যশোরের উন্নয়নে সার্বিক বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা শোনার জন্য। জনপ্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরকে বিভাগ ঘোষণা করবেন। বিভাগ দাবি ছাড়াও, সিটি কর্পোরেশন, আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উন্নীতকরণ, মহাকবি মাইকেল মধুসূদনের নামে সাংস্কৃতিক বিশ্ববিদ্যালয়, জরুরি ভিত্তিতে গ্যাস সরবরাহ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা-কলকাতার ট্রেনকে যশোরে যাত্রা বিরতি, বেনাপোলকে পৃথক স্থলবন্দর ও অর্থনৈতিক জোনসহ অনেককিছুর দাবি রয়েছে। এসব ব্যাপারে প্রচন্ড আশা¦াদী হয়ে উঠেছেন আমজনতা। ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর যশোরের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যশোরকে সিটি কর্পোরেশন করা হবে। যশোর প্রেসক্লাবে বিভাগ আন্দোলন পরিষদ সংবাদ সম্মেলন করে যশোরকে বিভাগ ঘোষণাসহ বিভিন্ন দাবি উত্থাপন করেছে। নেতৃবৃন্দের কথা, বৃহত্তর যশোরের নড়াইল, ঝিনাইদহ, মাগুরাসহ কুষ্টিয়ার একটি অংশ নিয়ে বিভাগ ঘোষণা করা হোক। সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তারা যশোরকে বিভাগ ঘোষণার বাস্তবতা ও যুক্তি তুলে ধরে বলেন, ইতিহাস ঐতিহ্যের যশোর নানা কারণে বিভাগীয় গুরুত্ব ও মর্যাদা বহন করে আসছে। দেশের সবচেয়ে বৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোল। যশোরে বর্তমান একটি বিশ্ববিদ্যালয়, তিনটি মেডিকেল কলেজ, বিমান বন্দর, সেনানিবাস, রেলওয়ে জংশন, নওয়াপাড়া শিল্প বন্দর, কেন্দ্রীয় কারাগার, শিক্ষা বোর্ডসহ সরকারের কয়েকটি বিভাগীয় কার্যালয় রয়েছে। ভৌগলিক দিক দিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মধ্যস্থল ও প্রাকৃতিক দুর্যোগমুক্ত যশোরের সঙ্গে কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা, খুলনাসহ আশেপাশের জেলাগুলোর সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে।
যশোরে বছরে ১২ হাজার কোটি টাকার ফসল উৎপাদিত হয়। খাদ্যশষ্যে উদ্বৃত্ত জেলা এটি। এখানে উৎপাদিত হাজার কেটি টাকার ফুল দেশের ৫৪ জেলায় বেচাকেনা হয়। সবজি ও মাছের রেণুপোনা উৎপাদনে রয়েছে রেকর্ড। মাছ চাষেও যশোরের উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে। গত অর্থ বছরে এই জেলায় ৩শ’ কোটি টাকা মূল্যের ২ লাখ ২৪ হাজার ৭শ’ ৬৭ টন মাছ উৎপাদন হয়েছেন। উদ্বৃত্ত ১ লাখ ৬৪ হাজার টন মাছ দেশ-বিদেশে রপ্তানি করা হয়েছে। বেনাপোল স্থলবন্দর ও যশোর কাস্টমস বিভাগ থেকে প্রতি বছর ১০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করা হয়। ১৭৮১ সালে বৃটিশ ভারতের প্রথম জেলা যশোরে দেশের সর্ববৃহৎ দ্বিতল কালেক্টরেট ভবন রয়েছে। এই ভবন থেকে খুব সহজেই বিভাগীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব। এসব যৌক্তিক কারণে বৃহত্তর যশোরকে নিয়ে বিভাগ গঠন করা এখন সময়ের দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- যশোর বিভাগ আন্দোলন পরিষদের আহŸায়ক অ্যাড, এনামুল হক, সদস্যসচিব হাবিবুর রহমান খান হাবিব, সাবেক গণপরিষদ সদস্য মঈন উদ্দিন খান মিয়াজী, আইনজীবী নেতা কাজী আব্দুনস শহীদ লাল, জাসদ নেতা রবিউল আলম, শিক্ষাবিদ তারাপদ দাস, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা ইকবাল কবির জাহিদ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারের কাছে কী কী দাবিনামা উত্থাপন হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,, জননেত্রী শেখ হাসিনা যশোরের সবকিছুই জানেন। তিনি অবশ্যই যশোরের যৌক্তিক দাবীগুলো বিবেচনা করবেন। যশোরের বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষের বক্তব্য, কৃষি, শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতিতে সমৃদ্ধ বিরাট সম্ভবনাময় যশোরের মানুষ তাদের যৌক্তিক দাবী পুরনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী ওইদিন প্রথমে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী একাডেমীর শীতকালীন গ্র্যাজুয়েশন কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করবেন। তারপর যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আযোজিত জনসভায় ভাষন দেবেন। জেলা আওয়ামী লীগ দফায় দফায় বৈঠক করেছেন জনসভা সফল করার জন্য। প্রশাসনও ব্যাপক তৎপর। চারিদিকে সাজ সাজ রব। প্রধানমন্ত্রীর যাতায়াতের সড়ক ও জনসভাস্থলের চারপাশে রংবেরংএর ব্যানার ফ্যাস্টুন ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে।

খবরটি সংগ্রহ করেনঃ- আই-নিউজ২৪.কম
এই খবরটি মোট ( 233 ) বার পড়া হয়েছে।
add

Share This With Your Friends