বাংলাদেশ | শুক্রবার, জুলাই ২০, ২০১৮ | ৫ শ্রাবণ,১৪২৫

আন্তর্জাতিক

23-01-2018 06:15:19 PM

সমঝোতায় ব্যর্থ দুই দল

newsImg

যুক্তরাষ্ট্রে সরকার অচল

 

জ্জ সিনেটে ভোটাভুটি স্থগিত জ্জ কাজে যোগ দিতে পারেননি কেন্দ্রীয় সরকারের বহু কর্মী

 

 

যুক্তরাষ্ট্রে সরকার সচল করতে সমঝোতায় পৌঁছানো ছাড়াই সিনেটে ভোটাভুটি মুলতবি করা হয়েছে। সোমবার এই ভোটাভুটি হওয়ার কথা ছিল। এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কার্যক্রমে অচলাবস্থা শুরম্ন হওয়ায় কেন্দ্রীয় সরকারের শত শত কর্মী কাজে যোগ দিতে পারেননি। সরকারের বাজেট বাড়ানো নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে উত্থাপিত একটি বিল পাস না হওয়ায় দেশটির সরকারি কার্যক্রমে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। কর্মসপ্তাহ শুরম্ন হওয়ার আগে রোববার রাতে সমঝোতায় পৌঁছানোর একটি উদ্যোগ ব্যর্থ হয়। সংবাদসূত্র : বিবিসি
বাজেট নিয়ে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিক পার্টির সমঝোতা না হওয়া হওয়ায় এখন কেন্দ্রীয় সরকারের বন্ধ হয়ে যাওয়া অনেক দপ্তর বন্ধই থাকছে। তবে কর্মসপ্তাহ শুরম্নর আগে একটি সমঝোতায় পৌঁছানোর উদ্যোগে সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতেও সিনেটের অধিবেশন চালু রাখা হয়; যেটা একটি বিরল ঘটনা। কিন্তু উদ্ভুত পরিস্থিতির জন্য ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান সিনেটররা পরস্পরকে দোষারোপ করতে থাকায় সমঝোতার কোনো সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। 
ডেমোক্রেটরা চায়, বাজেট নিয়ে সমঝোতার অংশ হিসেবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অভিবাসন নিয়ে আপস করতে হবে। কিন্তু রিপাবলিকানরা বলছে, কেন্দ্রীয় সরকারের সেবাগুলো বন্ধ থাকায় কোনো সমঝোতা সম্ভব নয়। 
সীমান্ত্ম নিরাপত্তা খাতে তহবিল বাড়াতে চায় রিপাবলিকানরা, এর মধ্যে মেক্সিকো সীমান্ত্মে প্রস্ত্মাবিত দেয়াল তোলাও অন্ত্মর্ভুক্ত। পাশাপাশি অভিবাসন প্রক্রিয়া সংস্কার করে সামরিক ব্যয় বৃদ্ধি করতে চায় তারা।
স্থানীয় সময় রোববার রাত সাড়ে ৯টায় সিনেটের অধিবেশ মুলতবি করা হয়। অচলাবস্থা শেষ করতে সোমবার সকালে ভোটগ্রহণ করা হবে বলে প্রথমে সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছিল, পরে সেটা ওইদিন বিকাল পর্যন্ত্ম স্থগিত করা হয়। 
কোনো সমঝোতায় পৌঁছতে ব্যর্থ হওয়ার মানে দাঁড়াচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মীরা অচলাবস্থা নিরসন না হওয়া পর্যন্ত্ম বিনা বেতনে ছুটিতে থাকবেন। সোমবার গৃহায়ন, পরিবেশ, শিক্ষা ও বাণিজ্য বিভাগের অধিকাংশ কর্মীকে বাসায়ই থাকতে হয়েছে। পাশাপাশি অর্থ, স্বাস্থ্য, প্রতিরক্ষা ও পরিবহন বিভাগের অর্ধেক কর্মী কাজে যোগ দিতে পারেননি। কিন্তু জাতীয় নিরাপত্তা, ডাক বিভাগ, এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল, হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগী, বহির্বিভাগের রোগীদের ওষুধ, দুর্যোগ সহায়তা, কারাগার, কর ও বিদু্যৎ সরবরাহের মতো জরম্নরি সেবাগুলো অব্যাহত থাকবে।
উলেস্নখ্য, মূলত অভিবাসন-নীতিতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রস্ত্মাবিত পরিবর্তনকে কেন্দ্র করেই বাজেট বাড়ানো নিয়ে সিনেটররা ভাগ হয়ে যান। যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ তরম্নণ অভিবাসীদের সামাজিক সুরক্ষায় ওবামা ঘোষিত 'ড্রিমার কর্মসূচি' পরিচালনায় অর্থ বরাদ্দ নিয়ে দুই ভাগে ভাগ হয় সিনেট। ওই কর্মসূচির আওতায় যে সাত লাখ তরম্নণ-তরম্নণী সাময়িকভাবে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অনুমতি পেয়েছেন, তাদের ব্যাপারে কোনো স্থায়ী সমাধানকে সমঝোতার শর্ত হিসেবে তুলে ধরে ডেমোক্রেটরা। অন্যদিকে, রিপাবলিকান প্রতিনিধিরা পুরো বিষয়টিকে সাময়িক সমাধান হিসেবে দেখতেই আগ্রহী। এ নিয়ে রিপাবলিকানদের সঙ্গে মতবিরোধ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত্ম বাজেটের সমঝোতা প্রস্ত্মাব পাসের জন্য প্রয়োজনীয় নূ্যনতম ৬০ ভোটও মেলেনি। কংগ্রেসে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকান সিনেটরদের ভোটের সংখ্যা ৫১টি।
এদিকে, দুই দলের সমঝোতা না হওয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে 'নিউক্লিয়ার অপশন' বেছে নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। মার্কিন কংগ্রেসের নিয়ম অনুসারে, নির্দিষ্ট বিষয়ের বিতর্কের শেষ টানতে সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা পয়েন্ট অব অর্ডারে এই প্রস্ত্মাব তুললে সেটা মেনে নেয়া হয়ে থাকে। মার্কিন কংগ্রেসে এখন পর্যন্ত্ম দুইবার ২০১৩ ও ২০১৭ সালে এই ভোটাভুটি হয়েছে। সেই দুইবারই রিপাবলকিান আর ডেমোক্রেটদের মধ্যে সমঝোতা থাকায় সেটা কোনো চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েনি।
মার্কিন অর্থবছর শুরম্ন হয় ১ অক্টোবর। এর আগেই বাজেট অনুমোদন করিয়ে নেয়ার বাধ্যবাধকতা থাকলেও প্রায়ই কংগ্রেস সেটা পাস করতে ব্যর্থ হয়। সে কারণে গত বছরের অর্থ বরাদ্দ চালু রাখতে ফেডারেল এজেন্সিগুলোকে অস্থায়ীভাবে তহবিল জোগান দিতে হয়। এবার সেই জোগান দেয়ার বিষয়েই সম্মত হতে না পারায় শনিবার থেকে বন্ধ হয়ে গেছে মার্কিন সরকারের বিভিন্ন বিভাগ।

খবরটি সংগ্রহ করেনঃ- i-news24
এই খবরটি মোট ( 307 ) বার পড়া হয়েছে।
add

Share This With Your Friends