বাংলাদেশ | শনিবার, জানুয়ারী ২০, ২০১৮ | ৭ মাঘ,১৪২৪

খেলা

07-01-2018 11:53:48 AM

সিডনিতেও অস্ট্রেলিয়ার দাপট

newsImg

এবারের অ্যাশেজ ‘ট্রেন’ যেন নিরবচ্ছিন্নভাবে ছুটে চলেছে আপন গন্তব্যে। অনেকটা বিনা বিপত্তিতে সিডনিতে পঞ্চম টেস্ট তৃতীয় দিনে যে জায়গায় দাঁড়িয়ে, সেখানেও অস্ট্রেলিয়ার নিরঙ্কুশ আধিপত্য। ৬ উইকেটে হাতে রেখেও ১৩৩ রানে এগিয়ে যাওয়ায় সিরিজের শেষ ইনিংসে ব্যাটিংয়ের ঝক্কি থেকে স্বাগতিকদের মুক্তি একরকম নিশ্চিতই। অস্ট্রেলিয়ানদের এমন ‘এক্সপ্রেস’ ক্রিকেটের সামনে ইংল্যান্ডকে মনে হচ্ছে যেন বহু পেছনে ফেলে আসা অখ্যাত কোনো স্টেশন!

বক্সিং ডে-তে ৯৯ রানে আউট হয়েও ‘নো’ বলের কারণে বেঁচে গিয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। একই সিরিজে সেই সৌভাগ্য ফিরিয়ে আনলেন উসমান খাজা। ইংলিশ লেগ স্পিনার ম্যাসন ক্রেইনের ‘ওভার স্টেপিং’ ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরির পথ করে দেয় অস্ট্রেলিয়ার এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানকে। সে-ও কী মরিয়া সেঞ্চুরি! প্রায় ৯ ঘণ্টায় ৩৮১ বলে ১৭১ রান অ্যাশেজ তো বটেই, সময়ের হিসাবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেও এটা খাজার দীর্ঘতম ইনিংস। তাঁর এমন ধৈর্যশীলতার কারণও রয়েছে। গত বছর একটাও সেঞ্চুরির দেখা পাননি। বরং ব্যর্থতার দায়ে দলে যাওয়া-আসাতেই সময় কাটে খাজার। তাতে এই সেঞ্চুরি পুঁজি করে কিছুদিন নির্ভার হয়ে খেলতে পারবেন তিনি।

কাকতালীয়ভাবে, ‘জীবন’ দেওয়া ক্রেইনের ভাগ্যেই জোটে খাজার উইকেট। তবে ততক্ষণে অ্যাশেজ সিরিজের শেষ টেস্টের দৃশ্যপটেও অনেকটা ঝাপসা দেখাচ্ছে ইংল্যান্ডকে। গতকাল পতন ঘটা দুই উইকেটের শেষটি খাজার, সেটিও অস্ট্রেলিয়া ২৯ রানে লিড নেওয়ার পর।

তবে একটি ‘ব্রেক থ্রু’ প্রায়ই নতুন করে আশার বাতি জ্বালে। কিন্তু হা হতোস্মি, মার্শ ভ্রাতৃদ্বয়—শন ও মিচেল মার্শের আরেকটি শতরানের জুটি আবার নিরাশায় ডুবিয়ে দেয় সফরকারীদের। ৯৮ রান নিয়ে আজ আবার ব্যাট করতে নামা শন মার্শের চেয়ে খুব পিছিয়ে নেই মিচেল মার্শ, নামের পাশে ৬৩ রানের ইনিংসটাকে সেঞ্চুরিতে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে আজ মাঠে নামছেন তিনি।

এক দিনে তিনটি শতরানের জুটি যেকোনো ফিল্ডিং দলেরই শরীর-মন নিংড়ে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট। তবে এবারের অ্যাশেজে ইংলিশদের বিরামহীন দুর্দিনে গতকাল একটি আনন্দময় মুহূর্ত অবশ্য দেখা গেছে, সিরিজে অবধারিত চতুর্থ সেঞ্চুরির মুখ থেকে যে ফেরানো গেছে স্টিভেন স্মিথকে! ব্যক্তিগত ৮৩ রানে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ফিরতি ক্যাচ দিয়েছেন মঈন আলীকে, যা এই সিরিজে ইংলিশ অফ স্পিনারের চতুর্থ শিকার মাত্র।

সামর্থের সঙ্গে ভাগ্য ও প্রযুক্তিও কেমন করে যেন বারবার অস্ট্রেলিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছে। দুটি নো বলের সুবাদে এই সিরিজে দুটি সেঞ্চুরির কথা তো বলা হয়েছে শুরুতেই। গতকাল দুই মার্শ ভাইও আউট হওয়ার হাত থেকে প্রযুক্তির কল্যাণে রেহাই পেয়েছেন একবার করে। একবার আম্পায়ার আবেদন অস্বীকার করার পর ইংলিশদের নেওয়া ‘ডিআরএস’ বাতিল হয়েছে। আরেকবার আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে নেওয়া অস্ট্রেলিয়ার ‘রেফারেল’ অনুমোদন পায় টিভি আম্পায়ারের কাছে। অবশ্য প্রযুক্তির সহায়তা নেওয়ার আগে অপর প্রান্তের খাজার সঙ্গে পরামর্শ করায় মৃদু সমালোচনা শুনতে হচ্ছে শন মার্শকে। আম্পায়ারের দেওয়া কট বিহাইন্ড সিদ্ধান্তের বিপক্ষে যেতে তো আর কারোর সঙ্গে পরামর্শের প্রয়োজন পড়ে না, ব্যাট-বলে সংযোগের ব্যাপারটি সবচেয়ে ভালো জানেন ব্যাটসম্যানই।

যাহোক, ৪ উইকেটে ৪৭৯ রান করে ইংল্যান্ডের ঘাড়ে ভারী বোঝা চাপিয়ে যে দিতে চলেছে ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ আগেই জিতে নেওয়া অস্ট্রেলিয়া, তা নিয়ে কোথাও কোনো ফিসফাস নেই। এবারের অ্যাশেজে স্কোরলাইনের মতোই অস্ট্রেলিয়ার আধিপত্য, অব্যাহত রয়েছে সিডনিতেও। ক্রিকইনফো

সংক্ষিপ্ত স্কোর : ইংল্যান্ড ৩৪৫/১০। অস্ট্রেলিয়া ১৫৭ ওভারে ৪৭৯/৪ (স্মিথ ৮৩, খাজা ১৭১, শন মার্শ ব্যাটিং ৯৮, মিচেল মার্শ ব্যাটিং ৬৩)।

খবরটি সংগ্রহ করেনঃ- আই-নিউজ২৪.কম
এই খবরটি মোট ( 9 ) বার পড়া হয়েছে।
add

Share This With Your Friends