বাংলাদেশ | রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৭ | ৮ আশ্বিন,১৪২৪

আউটসোর্সিং

24-08-2015 08:41:35 AM

ব্যাভিচার একধরনের ঋণ

newsImg

ব্যাভিচার একধরনের ঋণ।
বোখারা শহরে এক জুয়েলার তথা স্বর্ণের দোকানি ছিলো। ঘরে ছিলো তার সুন্দরী স্ত্রী। নিয়ম মাফিক একদিন রাতে লোকটি ঘরে এসে দেখল তার স্ত্রী বসে বসে কাঁদছে। কারণ জিজ্ঞেস করলে স্ত্রী বললো, আজকে অনেক বড় গোনাহ হয়ে গেছে। বললো, যে লোকটি অনেক দিন যাবত আমাদের ঘরে দুধ দিয়ে যেত সে আজকে দুধ দেয়ার সময় আমার হাত ধরে টিপাটিপি করছে।
ম্যাচিউরট হবার পর থেকে এ পর্যন্ত আপনি ছাড়া কেউ আমার হাত ধরেনি। অভাবনীয় এই পাপাচারের
কারণে আমি ক্ষোভ -দুঃখের অনলে দগ্ধ হচ্ছি প্রতিনিয়ত আর কান্না করছি অবিরত। এই কথা শুনে স্বামীর
চোখ দিয়ে ঝরঝর করে অশ্রু বের হয়ে এলো। লোকটি বলল, আজকে দোকানে এক মহিলা কাস্টমারকে
স্বর্ণের চূড়ি পরানোর ছলে তার হাত ধরে আমি টিপাটিপি করছিলাম, ব্যাভিচারের যেই ঋন আমি নিয়েছিলাম স্বীয় কাঁধে সেই ঋণ তুমি শোধ করেছ। 
আজ এই মূহুর্তে আমি আল্লাহর কাছে তাওবা করছি আমরণ আর কখনো ব্যাভিচার করবোনা। তবে তোমার কাছে আমার একটি রিকোয়েস্ট, আগামী কাল দুধওয়ালা তোমার সাথে কি বিহেভ করে আমাকে দয়া করে বলবে।
পরদিন স্বামী দোকানে চলে গেলো এবং যথাসময়ে দুধওয়ালা দুধ দিতে এসে কালক্ষেপন না করে মহিলাটির
পায়ে পড়ে বললো -মা! শয়তানের প্রতারণায় প্রতারিত হয়ে গতকাল অনেক বড় গুনাহ করে ফেলেছি এবং
বিনিদ্র রজনী যাপন করে মাওলার দরবারে তাওবা করেছি, এধরনের পাপাচার আর কোনদিন করবনা ;দয়া
করে আপনি আমাকে ক্ষমা করে দিন। মহিলাটি তাকে ক্ষমা করে দিল।
রাতে যখন স্বামী দোকান থেকে ফিরলো স্ত্রী পুরো ঘটনা তাকে ব্রিফ করলে পরে স্বামী আনন্দ চিত্তে বললো -
পরিবারের পুরুষরা যদি পরনারীর অবৈধ সংসর্গ থেকে তাওবা করে, তাহলে পৃথিবীর তাবৎ পুরুষ সেই
পরিবারের নারীদের অবৈধ সংসর্গ থেকে তাওবা করবে।
তথ্যসূত্র -: তাফসিরে রুহুল বায়ান (تفسير روح البيان )

খবরটি সংগ্রহ করেনঃ- ফেইস বুক . কম
এই খবরটি মোট ( 1434 ) বার পড়া হয়েছে।
add

Share This With Your Friends